ইসলাম ও আমাদের জীবন

বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ইসলাম ও আমাদের জীবন - বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ঈমানের দাবি ধর্মদ্রোহীদের সঙ্গ বর্জন

আমাদের মাঝে আছে আল্লাহর সর্বশেষ ওহী—কোরআন ও সুন্নাহ, যা কিয়ামত পর্যন্ত সব মুমিনের পথের দিশারী। সমস্যায়-সঙ্কটে বান্দা যখন আল্লাহর বিধান অন্বেষণ করবে, সর্বাবস্থায় যা তার প্রথম কর্তব্য, অবশ্যই কোরআন ও সুন্নাহে সে তা খুঁজে পাবে। আল্লাহ তাঁর পাক কালাম নাজিলই করেছেন বান্দাকে সরল পথ দেখানোর জন্য এবং অন্ধকার থেকে আলোতে আনার জন্য।

বিস্তারিত পড়ুন …

মায়ের কোল শিশুর প্রথম পাঠশালা

মানুষের প্রাথমিক জীবনে অর্জিত শিা কঠিনভাবে হৃদয়ে গ্রথিত হয় এবং তা বাস্তব জীবনকে প্রভাবিত করে। আরো এগিয়ে গিয়ে বলতে হয় প্রাক প্রাথমিক শিা তথা মায়ের কাছ থেকে জীবনের সূচনায় অর্জিত শিা আবশ্যকীয়ভাবে ভবিষ্যৎ জীবনে পথ নির্দেশ করে। এ জন্য তুির্ক কবি আবদুর রহমান আল কাশগরি একটি কবিতার শিরোনাম দিয়েছেন ‘হিজনুল উম্মাহাত হিয়া আল মাদরাসাতু লিল বানিনা ওয়াল বানাত’ অর্থাৎ ‘মায়ের কোল বালক-বালিকাদের জন্য পাঠশালা স্বরূপ’। সেখানেই মানুষের উত্তম অনুত্তম গুণাবলির সব শিা অর্জিত হয়। একজন সন্তানকে সৎ চবিত্রবান হিসেবে গড়ে তুলতে চাইলে তার সূচনা করতে হবে মাতৃকোল থেকেই।

বিস্তারিত পড়ুন …

আমাদের মানবতাবোধ

আজ সর্বত্র কীসের সঙ্কট চলছে? পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া বস্তুটি কী? দোহাই আল্লাহর! একটু ভেবে দেখুন— কোন জিনিসটি বর্তমানে পৃথিবীর নাগালে নেই?  জবাব সংক্ষিপ্তই। সদিচ্ছা নেই। মানুষের মর্যাদা নেই। মানবতা ও মানবাধিকারের মর্যাদা নেই। সে বিষয়ে প্রকৃতপক্ষে আমাদের মাথা ব্যথাও নেই। দুর্যোগের ঘনঘটা আমাদের মাথার উপর ঘুরপাক খাচ্ছে। এ বিষয়ে সবাই যেন বেপরোয়া। নিজের ভালো-মন্দের চিন্তা তো সবারই আছে কিন্তু সাধারণ মানুষ বা মানবতার ভাবনা কাউকে ভাবায় না।

বিস্তারিত পড়ুন …

সঠিক পথের সন্ধানদাতা – মুহাম্মদ সা:

সঠিক পথের সন্ধান দেয়ার জন্য আমি স্বয়ং তোমাদেরই মাঝ থেকে একজনকে রাসূল করে পাঠিয়েছি, তাঁর কাজ হচ্ছে তোমাদের কাছে আমার আয়াত পাঠ করে শোনাবে, তোমাদের জীবন পরিশুদ্ধ করবে, আমার কিতাবের অন্তর্নিহিত জ্ঞান তোমাদেরকে শিা দেবে, সর্বোপরি তোমরা যেসব বিষয় জানতে না তা তোমাদেরকে জানাবে।’ (সূরা আল বাকারা : ১৫১)।

বিস্তারিত পড়ুন …

এতিমের অধিকার সম্পর্কে মহানবী সা:

আবু সাঈদ খুদরী রা: থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা নবী করীম সা: মিম্বরে বসলেন এবং আমরা তাঁর আশপাশে বসলাম। তিনি বললেন : আমার পরে তোমাদের ব্যাপারে আমি যা আশঙ্কা করছি তা হলো এই যে দুনিয়ার চাকচিক্য ও সৌন্দর্য (ধন-সম্পদ) তোমাদের সামনে খুলে দেয়া হবে। এক সাহাবি বললেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! কল্যাণ কি কখনো অকল্যাণ বয়ে আনে? এতে নবী সা: নীরব রইলেন। প্রশ্নকারীকে বলা হলো, তোমার কী হয়েছে? তুমি নবী সা:-এর সাথে কথা বলছ, কিন্তু তিনি তোমাকে জবাব দিচ্ছেন না!

বিস্তারিত পড়ুন …

মুসলিম রোগী দেখতে দেখতে ইসলাম গ্রহণ

সম্প্রতি মার্কিন শিশু ও নারী বিশেষজ্ঞ ডা. ইউএস অরিভিয়া ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। নিজের ইসলাম গ্রহণ প্রসঙ্গে ডা. অরিভিয়া বলেন, আমি আমেরিকার একটি হাসপাতালে নারী ও শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাজ করি। একদিন হাসপাতালে এক আরব মুসলিম নারী এলেন বাচ্চা প্রসবের জন্য। প্রসবের পূর্বমুহূর্তে তিনি ব্যথায় কাতরাচ্ছিলেন। প্রসব মুহূর্ত ঘনিয়ে এলে তাকে জানালাম, আমি বাসায় যাচ্ছি, আর আপনার বাচ্চা প্রসবের দায়িত্ব অর্পণ করে যাচ্ছি অন্য এক ডাক্তারের হাতে। মহিলা হঠাত্ কাঁদতে লাগলেন, দ্বিধা ও শঙ্কায় চিত্কার জুড়ে দিলেন, ‘না না, আমি কোনো পুরুষ ডাক্তারের সাহায্য চাই না। আমি তার কথা শুনে অবাক হয়ে গেলাম।

বিস্তারিত পড়ুন …

হালাল উপার্জনের গুরুত্ব

নবী আকরাম সা: একটি হাদিসে বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি নিজের রুজি রোজগারের জন্য কাজ করে এবং সে কাজে লক্ষ্য থেকে আল্লাহর সন্তুটি অর্জন, তার দৃষ্টান্ত হজরত মুসা আ:-এর মায়ের মতো। তিনি নিজেরই সন্তানকে দুধ পান করান আবার তার বিনিময় লাভ করেন।’ যেমন আল্লাহতায়ালা বলেন, আর আমি পূর্বেই শিশুর (মুসা) জন্য স্তন্য দানকারিণীদের স্তন হারাম করে রেখেছিলাম। (এ অবস্থা দেখে) সে মেয়েটি (মুসার বোন) তাদের (ফেরাউনের লোকদের) বলল, ‘আমি তোমাদের এমন পরিবারের সন্ধান দেব যারা এর প্রতিপালনের দায়িত্ব নেবে এবং এর কল্যাণকামী হবে।’ এভাবে আমি মুসাকে তার মায়ের কাছে ফিরিয়ে আনলাম, যাতে তার চোখ শীতল হয়, সে দুঃখ ভারাক্রান্ত না হয় এবং আল্লাহর প্রতিশ্রুতি সত্য বলে জেনে নেয়। কিন্তু বেশির ভাগ লোক এ কথা জানে না। (সূরা কাসাস-১২-১৩)

বিস্তারিত পড়ুন …