ইসলাম ও আমাদের জীবন

বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ইসলাম ও আমাদের জীবন - বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

অপরাধমুক্ত সমাজ চায় সিয়াম

মানব জাতিকে পূতপবিত্র ও সুন্দরতম করে গড়ে তোলার একটি অত্যন্ত কার্যকরী পন্থা হলো রমজানের রোজা। পবিত্র মাহে রমজানের সিয়াম-সাধনা আল্লাহর অনন্ত অসীম রহমতের দ্বার খুলে দেয়। মানুষকে বেহেশতি সওগাত লাভ করার উপযুক্ত করে তোলে। রোজার মাধ্যমে মুত্তাকি হওয়া যায় এবং ধনী-গরিবের প্রতি সহমর্মী, ধৈর্যশীলতা ও সহনশীলতা অর্জন করা যায়। সিয়াম-সাধনায় পারস্পরিক সহমর্মিতাবোধ জাগ্রত হয় এবং পাপকাজ থেকে বিরত থাকার অভ্যাস গড়ে ওঠে।

বিস্তারিত পড়ুন …

সওয়াব অর্জনের মওসুম

মহান আল্লাহ তায়ালা মানবজাতিকে পৃথিবীতে তাঁর খলিফা তথা প্রতিনিধি হিসেবে নিযুক্ত করলেন। উদ্দেশ্য মানবজাতি এই ধরাতে একমাত্র আল্লাহর ইবাদত করবে এবং তাঁর সার্বভৌমত্ব ঘোষণা করবে। আল্লাহর প্রিয় মাখলুক তথা আশরাফুল মাখলুকাত (মানুষ) দুনিয়ার সংক্ষিপ্ত জীবনে সঠিক পথ থেকে দূরে না যায় সেজন্য যুগে যুগে অসংখ্য নবী রাসূল পাঠিয়েছেন, যাতে তাঁরা মানবজাতিকে সঠিক পথের দিশা দিতে পারেন।

বিস্তারিত পড়ুন …

মর্যাদা ও কল্যাণের আধার তাকওয়া

বর্ষ পরিক্রমার চাকায় ভর করে সিয়াম সাধনার মাস রমজান আমাদের জন্য আবারও নিয়ে এলো আল্লাহর অবারিত রহমত, বরকত ও মাগফিরাত। আত্মশুদ্ধি, আত্মসংযম ও আত্মগঠনের এক বিশেষ প্রশিক্ষণ এ রমজান। এ মাসে সব কল্যাণ ও মর্যাদা যে জিনিসটির সঙ্গে জুড়ে দেয়া হয়েছে সেটি অর্জনের মাস। আর সে জিনিসটিই হলো তাকওয়া। তাকওয়া এমন একটি গুণের নাম যার মধ্যে মানুষের দুনিয়া ও আখিরাতের সব মর্যাদা নিহিত। তাকওয়াহীন ব্যক্তি সে যেই হোন না কেন, তাকে সবচেয়ে সম্মানিত ব্যক্তি বলা যাবে না।

বিস্তারিত পড়ুন …

রমজানের শেষ দশকের ইবাদত ইতেকাফ

ফেরেশতাসুলভ গুণাবলি ও মহান রাব্বুল আলামিনের বিশেষ রহমত লাভের যোগ্যতা অর্জনের মাস রমজানুল মোবারকের আজ ১৯ তারিখ। আর মাত্র একদিন পর থেকে রমজানের শেষ দশক শুরু হবে। ২০ রমজানের পর থেকে এ মাসের শেষ দিন পর্যন্ত একটি বিশেষ ইবাদত রয়েছে। দিনের ২৪ ঘণ্টাই মসজিদে অবস্থান ও ইবাদত-বন্দেগিতে কাটানোর এই ইবাদতটির নাম ইতেকাফ।

বিস্তারিত পড়ুন …

রহমত ও বরকতের আবহে রমজান

রহমত ও বরকতের মাস রমজান। রমজানে রহমতের আবহে বরকতের স্রোতধারায় মন সজিব হয়ে ওঠে। অনাবিল শান্তি ও কমনীয় ভাব বিরাজ করে সর্বত্র। সুসংবাদ মেলে মাগফিরাত ও নাজাতেরও। এ মাসে অন্যায় অপরাধ অনেক কম হয়। মানুষ তুলনামূলক ইবাদত-বন্দেগি করে বেশি। কারণ রমজানের বরকতে এ মাসে ইবাদতে সওয়াব পাওয়া যায় অনেক বেশি। মুমিনের জীবনে এটি একটি শ্রেষ্ঠ পাওনা।

বিস্তারিত পড়ুন …

আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাওয়ার কিছু দোয়া

নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জীবনের প্রধান দুটি বৈশিষ্ট্য হলো : এক. আবদিয়াতের পূর্ণতা। দুই. নবুয়তের ব্যাপকতা।
তার আবদিয়াতের প্রকাশ ঘটেছে দোয়ায়। আর নবুয়তের প্রকাশ ঘটেছে দাওয়াতে। সুতরাং উম্মত হিসেবে আমাদের অবশ্যকর্তব্য দোয়া ও দাওয়াতকে আন্তরিকভাবে গ্রহণ করা। দোয়াতে এ বিশ্বাস রাখা জরুরি যে, আল্লাহ তায়ালা সর্বাবস্থায় দিতে পারেন এবং দেয়ার জন্য তার কাছে সব কিছু রয়েছে এবং এই একিনও রাখতে হবে, তার দরজা ছাড়া অন্য কোনো দরজা নেই এবং তিনি স্বয়ং দিতে চান।

বিস্তারিত পড়ুন …

মাহে রমজান ও আল কুরআন

মাহে রমজান ও আল কুরআনযে ব্যক্তি ঈমান ও এহতেসাবের সাথে রোজা রাখবে তার অতীতের গুনাহ-অপরাধ মাফ করে দেয়া হবে। ‘রোজাদারের মুখের গন্ধ আল্লাহর কাছে মিশকের সুগন্ধি থেকেও উত্তম।’ ‘এ মাসে যদি কেউ আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য আপন ইচ্ছায় কোনো নফল নেকি করে, সে অন্যান্য মাসের ফরজ ইবাদতের সমান সওয়াব পাবে। আর যে একটি ফরজ আদায় করবে সে অন্যান্য মাসের সত্তরটি ফরজের সমান সওয়াবের হকদার হবে।’

বিস্তারিত পড়ুন …

নবীর দেশে রমজান

আমাদের দেশে যখন রমজান এলেই ব্যবসায়ীরা খুলে বসেন দাম বাড়ানোর ক্যালকুলেটর, ঠিক উল্টোটিই দেখা যায় নবীর দেশ সৌদি আরবে। সেখানে রমজান উপলক্ষে বিভিন্ন কোম্পানির থাকে বিশেষ ছাড়। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য থাকে হাতের নাগালে। আর ক্রয়-অক্ষম মানুষদের জন্য বাদশার পক্ষ থেকে দেয়া হয় গিফট বক্স। যাতে থাকে তেল-চিনি-দুধসহ অন্যান্য দ্রব্য।

বিস্তারিত পড়ুন …

মাগফিরাত লাভের অপূর্ব সুযোগ

এতেও এ কথাই প্রমাণিত হচ্ছে যে, রমজানের রোজা হলো গোনাহ মাফ করানোর ও মাগফিরাত লাভ করার তথা চিরশান্তি, চিরমুক্তি লাভের একটি সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা, একটি অতি নির্ভরযোগ্য সুযোগ।
কিন্তু যে এ সুযোগের সদ্ব্যবহার না করে তার ধ্বংস অনিবার্য, তার বিপদ অবশ্যম্ভাবী।
আর রোজাদার সম্পর্কে প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন :
অনেক রোজাদার রয়েছে যাদের রোজায় অনাহারে থাকা ছাড়া কোনো উপকার নেই; আর অনেক লোক রয়েছে যারা রাতে জাগ্রত থেকে নামাজে দণ্ডায়মান হয়, জাগরণ ছাড়া তাদের কোনো উপকার নেই। কেননা সারাদিন রোজা রেখে হারাম অবৈধ উপায়ে অর্জিত অর্থসম্পদ দিয়ে ইফতার করলে রোজা বা নামাজ দ্বারা কী উপকার হতে পারে?

বিস্তারিত পড়ুন …

যুব সমাজে রমজানের প্রভাব

রমজানের প্রতিটি মুহূর্ত নির্দিষ্ট ছকে বাঁধা। রমজানের চাঁদ দেখা যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই শুরু হয়ে যায় তারাবির প্রস্তুতি। আবার শেষ রাতে সাহরি খাওয়ার জন্য অন্য রকম আয়োজন। এগারোটি মাসের চিরচেনা রুটিনের সবকিছু পাল্টে যায়। আমরা যেন নতুন এক জীবন ধারায় প্রবেশ করি। রমজানের প্রথম দশক রহমতের, দ্বিতীয় দশক মাগফিরাতের আর শেষ দশক জাহান্নাম থেকে মুক্তির। জাহান্নাম থেকে প্রতিটি মুমিনের প্রত্যাশিত ক্ষমার। রমজানের শেষ দশক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই সময়টিতে এমন এক রজনী রয়েছে যা হাজার মাসের চেয়েও উত্তম। আর সেটি হলো লাইলাতুল কদর। এ রজনী লাভের আশায় অনেকেই মসজিদে ইতেকাফে বসেন। এভাবে এক সময় শাওয়ালের একফালি চাঁদ মুমিনের ঘরে ঘরে ঈদের আনন্দের বারতা নিয়ে হাজির হয়।

বিস্তারিত পড়ুন …