ইসলাম ও আমাদের জীবন

বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ইসলাম ও আমাদের জীবন - বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ইসলামের সব বিধি বিধানই স্বাস্থ্যকর

ইসলাম অর্থ শান্তি। শান্তির ধর্ম ইসলাম। ইসলাম ধর্মের অনুসারীরা মুসলিম। ‘আচ্ছালাতু খায়রুম মিনান্নাউম’ ঘুম হতে নামাজ উত্তম। মুয়াজ্জিনের এ আহ্বানে বালেগ মুসলিম নর নারীর ঘুম ভাঙে। শুরু হয় প্রাত্যাহিক কাজ। যথারীতি পাক পবিত্র হয়ে অজু করলে দেহ মনের প্রশান্তি আসে, সতেজ ও স্বস্তির পরশ লাগে। প্রফুল্ল চিত্তে নামাজ আদায় করে দিনের সাংসারিক ও পার্থিব কাজ শুরু হয়।

স্বাস্থ্যই সকল সুখের মুল। সুখ  ও শান্তির জন্য চাই সুস্বাস্থ্য, শুধুমাত্র নিরোগ সতেজ দেহ হলেই সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হওয়া যায় না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সংজ্ঞা অনুযায়ী আত্মার সুস্বাস্থ্য অর্জিত না হলে পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবান হওয়া যায় না। এজন্য চাই কায়মনোবাক্যে নিজেকে পরমারাধ্য আল্লাহ পাকের নিকট সমর্পণ করা। ওজুর মাধ্যমে দেহ মনের যেমন প্রশান্তি আসে তেমনি নিজেকে স্রাষ্টার নিকট সমর্পনের প্রস্তুতি নেয়া হয়। আত্মার শক্তি সঞ্চিত হয়। স্রস্টার কাছে নামাজের মাধ্যমে নিজেকে সমর্পন করায় যে আত্ম তৃপ্তি লাভ করা যায় ততটা অন্য কোন ইবাদতের মাধ্যমে আসে না।

পক্ষান্তরে নামাজ একটি উত্কৃষ্ট ব্যায়াম। শরীরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গসমূহের ব্যায়াম হয় এ নামাজের মাধ্যমে। যারা চিকিত্সা বিজ্ঞান সম্বন্ধে অবহিত আছেন তারা জানেন নামাজের মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে শরীরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সঞ্চালন কত উপকারী। বিশেষ করে রুকু ও সিজদা, আল্লাহপাক যা যথাযথ সুন্দরভাবে আদায় করার তাগিদ দিয়েছেন তা মেরুদন্ড ও মস্তিষ্কের জন্য কত উপকারী আমরা ভাবতেও পারি না। রাসূলুল্লাহ (স.) বলেছেন তোমাদের কারো বাড়ির কাছে যদি নহর থাকে এবং ঐ নহরে যদি সে দৈনিক পাঁচবার গোসল করে তবে তার শরীরে কোন ময়লা অবশিষ্ট থাকে কী. ইহা পাঁচবার নামাজের দৃষ্টান্ত।  তাহলে আমাদের ভেবে দেখা উচিত নামাজের উপকারিতা কত।

‘সকাল সকাল ঘুমায় যারা সকাল সকাল উঠে যারা, ধনে জ্ঞানে স্বাস্থ্যে তারা হবেই হবে সবার সেরা।’

যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ শেষে নিজের সাংসারিক কাজ কর্মে নিয়োজিত হয় এই প্রভাতের নির্মল বায়ু ও আবহাওয়ার সংস্পর্শে এসে তার দেহ মনে যেমন প্রফুল্লতা আসে তেমনি নতুন শক্তিতে বলীয়ান হয়ে দ্বিগুণ উত্সাহে আত্ম কর্মে নিজেকে নিয়োগ করে কায়িক পরিশ্রম শুধু সাফল্যই আনে না শরীরকে রাখে সতেজ, সবল ও সুস্থ, নব উদ্যমে জোগায় কর্ম প্রেরনা, এভাবে যিনি জীবিকা অর্জন করেন তার আত্মতৃপ্তি যে কত তা ভাষায় ব্যক্ত করা যাবে না।

লেখক: হাবিবুর রহমান তালুকদার