ইসলাম ও আমাদের জীবন

বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

ইসলাম ও আমাদের জীবন - বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে নেয়া কিছু লেখা …

শিশুর জীবন গঠনে পরিবারের ভূমিকা

শিশু! শব্দটি শুনলেই মনের গহিনে ভালোবাসার ঢেউ খেলে যায়; যা অকৃত্রিম, মায়াময় ও মোহনীয়। কেননা শিশু হচ্ছে মহান আল্লাহ তায়ালার নেয়ামত, মা-বাবার কাছে পবিত্র আমানত।

সন্তান মা-বাবার চোখের শীতলতা, হৃদয়ের প্রশান্তি আনয়ন করে। পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর হলো শিশু। শিশু নিষ্পাপ, অবুঝ। রাসূল সা: বলেন, শিশুরা হলো জান্নাতের প্রজাপতি। (মিশকাত)। সে পৃথিবীতে এসে চোখ মেলে দেখতে শিখে, কান পেতে শুনতে শিখে, আস্তে আস্তে শিখে কথা বলা; তাই সে জন্মের পর তার চার পাশে যা কিছু দেখবে, শুনবে সে তা-ই শিখবে।

সে জন্য তার জীবন সুন্দর করে গড়ে তোলার ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। শৈশবেই শিশুকে আদব ও শিষ্টাচার শিক্ষা দেয়া আবশ্যক, যেন শিশু প্রশংসনীয় ও সুন্দর চরিত্রে সজ্জিত হয়ে গড়ে উঠতে পারে।

রাসূল সা: বলেছেন, তোমরা তোমাদের সন্তানদের মহৎ করে গড়ে তোলো এবং তাদের উত্তম আদব তথা শিষ্টাচার শিক্ষা দাও। (মুসলিম)।

অপর হাদিসে রাসূল সা: বলেন, সন্তানকে আদব তথা শিষ্টাচার শিক্ষা দেয়া সম্পদ দান করা অপেক্ষা উত্তম। (বায়হাকি)।

একটি সুন্দর জীবন কিভাবে গঠন করা যায় এবং শিশুর শিক্ষার গুরুত্ব কতটুকু তা ওপরের হাদিস থেকে স্পষ্ট প্রমাণিত। একটি শিশু একটি সমাজের আগামীর সুন্দর রঙিন ঘুড়ি। মানুষ ও সমাজের জন্য সে হবে রাহবার, তার চারিত্রিক গুণাবলির মাধ্যমে সত্যের আলো ছড়াবে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে, মানুষের হৃদয়ে হৃদয়ে। অন্ধকার সমাজে প্রজ্বলিত করবে মুক্তির আলো, পথভোলা, দিকভ্রান্ত মানুষকে দেখাবে সত্যের পথ, মুক্তির পথ।

হতাশায় ডুবন্ত জাতিকে তুলে আনবে আশার আলোর রঙিন ঠিকানায়। কিন’ আজ তা হচ্ছে না। যা হচ্ছে তা হলো আমাদের শিশুরাই আগামী দিনের সন্ত্রাস, দুর্নীতিবাজ। কেননা আমরা আমাদের শিশুদের সেই শিক্ষা দিচ্ছি না যা মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন। প্রিয় হাবিব সা: আমাদের শিখিয়েছেন।

আমাদের শিশুরা বড় হচ্ছে টেলিভিশন আর ডিশ অ্যান্টিনায় অশ্লীল ছবি দেখে দেখে, যেখান থেকে শিখছে খুনখারাবি, সন্ত্রাস, রাহাজানি, অবৈধ প্রেম-ভালোবাসা, ইভটিজিংসহ ভয়াবহ সব অশ্লীল জঘন্য অপরাধ। আর তা শিখছে মা-বাবা, ভাই-বোনদের সাথে বসে। তাহলে এবার ভাবুন! আমাদের এই শিশুরা সমাজের জন্য কী করতে পারবে, তার সব অপকর্মের জন্য দায়ী কারা?

বাস্তবতা হলো, আমরা আমাদের জীবনে বিধর্মীদের সব কালচার গ্রহণ করছি! দূরে ঠেলে দিয়েছি ইসলামী শিক্ষাকে, পশ্চিমাদের রঙিন বিজ্ঞাপনের কাছে আমরা বিক্রি করেছি আমাদের বিবেক ও সন্তানদের চেতনা ও মনুষত্বকে।

তাই তো আমরা আজ ইসলামী শিক্ষাকে কোনো শিক্ষা মনে করি না, অথচ ইসলামে শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম আর এই শিক্ষার প্রথম স্তর হলো পরিবার। ইসলামে পরিবার হচ্ছে গোটা সমাজ বা রাষ্ট্রের ক্ষুদ্রতম একক। সমাজ বা রাষ্ট্রীয় জীবনে সঠিক ভূমিকা পালনের মৌলিক শিক্ষা লাভ করা হয় পারিবারিক পরিবেশে।

তাই আমাদের সন্তানদের শিশুকাল থেকেই নৈতিক মূল্যবোধের শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। কেননা হাদিসে এসেছে রাসূল সা: বলেন, তোমরা নিজেদের সন্তানদের স্নেহ করো এবং তাদের আদর্শ শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তোলো।

লেখক : মাওলানা আশরাফ মাহমুদ